Saturday , December 5 2020

বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রেহাই পেতে বয়স ৩০ হলেই এই পদক্ষেপ নিন, আর বয়স ধরে রাখুন আজীবন

বুড়িয়ে যাওয়া থেকে রেহাই পেতে বয়স ৩০ হলেই এই পদক্ষেপ নিন, আর বয়স ধরে রাখুন আজীবন – নারীরা কুড়িতেই বুড়ি! তাই বয়স কুড়ি পেরনোর পর আসতে আসতে যেন ত্বক কুঁচকে যাওয়া তারপর বলি দেখা এসব দেখা যায় আস্তে আস্তে।

যদিও তাঁর জন্য সঠিক ট্রিটমেন্টের প্রয়োজন কিন্তু তিরিশ বছর পেরোনোর সঙ্গে সঙ্গে যেন একটু একটু করে মেয়েরা বুড়িয়ে যেতে বসেন। আর তার ছাপ পড়ে ত্বকের মধ্যেই। যদিও শরীর অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়ে কিন্তু তা সত্ত্বেও ত্বকে বুড়ত্বের ভাব যেন বেশি হয়ে ওঠে।

একই সঙ্গে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও আস্তে আস্তে কমতে শুরু করে আর তাতে নানান রকমের সমস্যা দেখা দেয়। তাই তো ত্রিশ বছর পেরলেই এই নিয়মগুলি মেনে ছাড়া অবশ্যই উচিত-

1. প্রতিদিন কলা খান- যদিও কলার গুণাগুণ নিয়ে নতুন করে কিছু বলতে হয় না। কারণ কলায় থাকা পটাশিয়াম শরীরের বিভিন্ন হরমোনের ভারসাম্যহীন তাকে রক্ষা করে একই সঙ্গে হাড়ের গঠন সঠিক মাত্রায় পূর্ণ করে তাই শরীর সুস্থ থাকতে কলা খেতেই হবে।তার পর ত্রিশ বছর পেরলেই মহিলাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় একটি করে কলা থাকাটা অবশ্যই দরকার।
2. বেশি করে শাক সবজি খান- শাক সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ফলেট উপাদান থাকে যা আসলে আমাদের শরীরে ব্লাড কাউন্টের মাত্রা বাড়িয়ে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তলেই।

3. কফি কে বলুন বাই বাই- অনেকের মধ্যেই কফি খাওয়ার বিশেষ প্রবণতা দেখা যায় কিন্তু যত বয়স বাড়বে তত বেশি করে কফি খেলেই শরীরের ওপর গুরুত্বের প্রভাব ফেলে তাই ত্রিশ বছর পেরিয়ে গেলে সুস্থ থাকার জন্য কফি খাওয়া উচিত নয়।

4. ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার- চিকিত্সকরা বলে থাকেন ত্রিশ বছর পেরোনোর সঙ্গে সঙ্গে শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা যায় তাই ক্যালসিয়ামের ঘাটতি পূরণ করার জন্য এবং হাড়ের গঠন ঠিক রাখার জন্য অবশ্যই দুধ দই জাতীয় খাবার খাওয়া উচিত।
5. ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খান- ভিটামিন সি যা আমাদের হাড়ের গঠন সঠিক ভাবে ধরে রাখে, কমলালেবু এবং টক জাতীয় খাবার খাওয়া তাই তিরিশ বছর পরে অত্যন্ত জরুরি। হাড়ের গঠন ঠিক রাখার পাশাপাশি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে।

6. ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে- একটা বয়সের পর আমাদের মস্তিষ্কের কোষগুলি আসতে আসতেই কর্মহীন হতে শুরু করে তাই সেগুলিকে সচল রাখার জন্য ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া বিশেষ উপকারী বলেই জানাচ্ছেন চিকিত্সকরা।

তবে এই সব খাবার দাবারে মেনেছেন রাখার পাশাপাশি অবশ্যই আমাদের জীবন ধারার কিছু গতি পরিবর্তন করতে হয়। যেমন মদ্যপান, ধূমপান এগুলি থেকে বিরত থাকাই ভাল। কারণ মদ্যপান কিংবা ধূমপান যত বেশি পরিমাণে করবেন ততই শরীরের কর্মক্ষমতা আস্তে আস্তে ধীর গতিতে চলবে।